কীভাবে মশা-মাছি তাড়াবেন? শিশুর জন্য প্রচলিত ও ঘরোয়া পদ্ধতির হদিস দিলাম আমরা!

কীভাবে মশা-মাছি তাড়াবেন? শিশুর জন্য প্রচলিত ও ঘরোয়া পদ্ধতির হদিস দিলাম আমরা!

ছোট্ট সোনার মাখনের মতো তুলতুলে শরীরে আপনি যতো ইচ্ছে হামি খেতে পারেন বা আদর করতেই পারেন। কিন্তু, যদি মশার দল বা পোকামাকড়ের গুষ্টি আপনার পুচকি সোনাকে হামি খাবো বলে, সেটা আপনার সহ্য হবে কি? আমরা, বড়রা নিজেদের হাত-পা চালাতে জানি, নিজেদের বিপদ-আপদ বুঝতে পারি। মশা বা কোনও পোকা কামড়ালে তাকে মেরে ফেলি বা তাড়িয়ে দিই সঙ্গে সঙ্গে।

আপনার দুধের শিশুটি কিন্তু সেটা একদমই পারে না। ফলস্বরূপ, বেচারি পড়ে পড়ে মশার কামড় খায়। আর বাড়ন্ত বাচ্চারা বাইরে খেলতে গিয়ে এতই মত্ত থাকে যে, মশাকেও বন্ধু বানিয়ে বসে। মশা কামড়ালে যে তাড়িয়ে দিতে হবে, সেটা তার মাথায় থাকে না। (How to protect babies from mosquito and insect bite in Bengali.)

মশার কামড়ে ম্যালেরিয়া, ডেঙ্গি, চিকুনগুনিয়ার মতো ভয়ানক রোগ হতে পারে, এটা নিশ্চয় আপনার একেবারেই অজানা নয়। শুধু এইসব প্রাণঘাতী রোগই নয়, বাচ্চার শরীরে মশা কামড়ালে জায়গাটি ফুলে গিয়ে ক্ষত সৃষ্টি করতে পারে। অন্য কোনও বিষাক্ত পোকা কামড়ালে বা পোকার রস লেগে গেলে চামড়া গলিয়ে ক্ষতের সৃষ্টি করে, যা খুবই যন্ত্রণাদায়ক।

আর, এত বাড়াবাড়ির দিকে যদি না ভাবতে চান, তা হলেও বিপদ কম হয় না। পোকা বাচ্চার কানে বা নাকে ঢুকে গিয়ে মারাত্মক বিপদ ডেকে আনতে পারে। একরত্তি ছানাটি যেহেতু কিছুই বুঝতে পারে না, তাই মশা ও পোকার কামড় থেকে ওকে বাঁচানোর দায়িত্ব অবশ্যই আপনার। কীভাবে? দেখে নিন এক নজরে।

 

মশা-মাছি বা পোকামাকড়ের হাত থেকে কীভাবে বাঁচাবেন ছোট্ট সোনাকে ?

 

#1.২ মাসের কম বয়সি বাচ্চার জন্য (For babies under 2 months)

  • সদ্যজাত বা ২ মাসের কম বয়সি বাচ্চার শরীরে বাজারচলতি মসকুইটো বা বাগ রিপেল্যান্ট (Mosquito/ Bug repellents) ব্যবহার করা একদমই উচিত নয়। তা সে যতো ভালো কোম্পানিরই হোক না কেন। এমনকি, DEET-free রিপেল্যান্টও সদ্যজাত বাচ্চার জন্য একদমই ভালো নয়। আবার বাচ্চার ঘরে মশা তাড়ানোর ধূপ বা স্প্রে দেওয়াও ক্ষতিকর। তাই বাচ্চাদের জন্য যে মশারি কিনতে পাওয়া যায়, তাই দিয়ে বাচ্চাকে ঢেকে রাখুন।
  • মশা সাধারণত ভোরবেলা বা সন্ধ্যার সময় খুব সক্রিয় হয়ে ওঠে। এই সময় ঘরের জানলা-দরজা বন্ধ রাখুন।
  • বাচ্চাকে বাইরে নিয়ে যেতে হলে হাল্কা রঙের হাত-পা ঢাকা জামা পরিয়ে নিয়ে যান। তবে খেয়াল রাখবেন, যাতে বাচ্চার শরীরে হাওয়া চলাচল করে।
  • বাচ্চাকে বাইরে নিয়ে যাওয়ার জন্য যেসব প্যারাম্বুলেটর বা ব্যাগ (Baby carrier basket) পাওয়া যায়, তাতে মশারির মতো নেট লাগানোই থাকে। বাইরে যাওয়ার সময় এই নেট নামিয়ে নিলেই হল।
  • উগ্র গন্ধের প্রতি মশার আকর্ষণ বেশি। বাচ্চাকে উগ্র গন্ধওয়ালা সাবান, ক্রিম ইত্যাদি মাখাবেন না। আপনি যদি সবসময় বাচ্চার সাথে থাকেন, তা হলে কোনও উগ্র গন্ধের পারফিউম, সাবান, শ্যাম্পু বা ক্রিম ব্যবহার করবেন না।

#2. ২ মাস ও তার বেশি বয়সি বাচ্চাদের জন্য (For babies over 2 months)

  • বাচ্চার বয়স অন্তত ২ মাস হলে আপনি রিপেল্যান্ট ব্যবহার করতে পারেন। DEET নামক একটি কেমিক্যাল মশা ও অন্যান্য পোকা শরীর থেকে দূরে রাখতে খুবই কার্যকরী। যে কোনও ভালো মসকুইটো বা বাগ রিপেল্যান্ট (Mosquito/ Bug repellents)-এ এই DEET থাকে। বাচ্চার শরীরে এটা ব্যবহার করার আগে ডাক্তারকে জিজ্ঞেস করে নিন এবং রিপেল্যান্টে যে পরিমাণ DEET আছে, তা বাচ্চার জন্য নিরাপদ কি না জেনে নিন।
  • পিকারিডিন (picaridin) নামক কেমিক্যালটিও DEET-এর মতোই কার্যকরী। তবে, বাচ্চার বয়স দু’মাসের কম হলে কিছুতেই ব্যবহার করবেন না।
  • শুধু কেমিক্যাল যুক্ত বা মেডিকেটেডই নয়, এখন বাজারে অনেক ভালো ভালো মসকুইটো বা বাগ রিপেল্যান্ট (Mosquito/ Bug repellents) পাওয়া যায়,যেগুলো বিভিন্ন গাছগাছড়ার নির্যাস দিয়ে তৈরি হয়। ব্যবহার করে দেখতেই পারেন।
  • বাচ্চা বাইরে খেলতে গেলে ফুলহাতা জামা ও ফুল প্যান্ট পরিয়ে খেলতে পাঠান। চটির বদলে ঢাকা জুতো পরানো অবশ্যই ভালো, কারণ মশা ও পোকাদের পায়ের দিকে কামড়ানোর প্রবণতা বেশি থাকে। শরীরের আঢাকা জায়গায় রিপেল্যান্ট লাগিয়ে দিন।

মশা মাছি তাড়াতে ঘরোয়া এই টোটকাগুলির কিন্তু জবাব নেই। দেখে নিন সঙ্গের ছবিগুলিতে->

How to protect babies from mosquito in Bengali

আরও পড়ুন: সোনামণির শরীর খারাপ? স্যাঁতস্যাঁতে এই মরসুমে ওকে কাবু করতে পারে কোন কোন অসুখ!

#3.পরিবেশের ওপর নজর দিন (Clean your environment)

  • বাচ্চা যে ঘরে থাকে বা অন্য সব ঘরেও জানলায় ফাঁক থাকলে সারিয়ে নিন।
  • জানলায় নেট লাগিয়ে রাখলে মশা ও পোকামাকড় ঘরে সহজে ঢুকতে পারে না অথচ হাওয়া চলাচলও হয়। একটু বড় বাচ্চা সবসময় মশারির ভিতর থাকতে চায় না বা সবসময় জানলা বন্ধ রাখলে ঘরের পরিবেশ বদ্ধ লাগতে পারে। এই ক্ষেত্রে, জানলায় নেট লাগিয়ে রাখা সবথেকে ভালো।
  • বাড়ির আশেপাশে জল জমতে দেবেন না। ফুলের টব, বাগানের নালা, বাইরের ড্রেন নিয়মিত পরিষ্কার রাখুন।বাড়ির কোথাও জল জমে থাকলে মশার বংশবৃদ্ধিতে সুবিধাই হবে।

#4.কী কী বিষয়ে সতর্ক থাকবেন? (Be cautious about these)

  • রিপেল্যান্ট বা স্প্রে যাই ব্যবহার করুন না কেন, ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে নিন।
  • রিপেল্যান্ট-এর ব্যবহারবিধি ভালো করে জেনে নিন এবং সেভাবেই ব্যবহার করুন।
  • মশা তাড়ানোর ধূপ ব্যবহার করবেন না। এতে অনেক বাচ্চার শ্বাসকষ্ট হয়।
  • বাচ্চাদের জন্য বিশেষ ভাবে তৈরি করা রিপেল্যান্ট কিনতে পাওয়া যায়। ভালো করে লেবেল দেখে কিনুন এবং ডাক্তারকে দেখিয়ে নিন।
  • কোনও অবস্থাতেই ২ মাসের কম বয়সি বাচ্চাকে রিপেল্যান্ট লাগিয়ে দেবেন না।
  • বাচ্চার চোখ, নাক, মুখের একদম কাছে রিপেল্যান্ট লাগাবেন না।
  • মশা বা পোকার কামড় থেকে বাচ্চার গায়ে ক্ষতের সৃষ্টি হলে দেরি না করে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

 

আরও পড়ুন: ছোট্ট ছানার ত্বকের যত্নে কোনও ত্রুটি হচ্ছে না তো? কীভাবে দেখভাল করবেন, চেকলিস্ট ছকে দিলাম আমরা!

 

একজন মা হয়ে অন্য মায়েদের সঙ্গে নিজের অভিজ্ঞতা ভাগ করে নিতে চান? মায়েদের কমিউনিটির একজন অংশীদার  হয়ে যান। এখানে ক্লিক করুন, আমরা আপনার সঙ্গে যোগাযোগ করব।

null

null