ঘরোয়া ভেপার রাব

উপকরণ (Ingredients)
নারকেল তেল, অলিভ অয়েল অথবা অ্য়ামন্ড অয়েল (আধ কাপ)
মধু (দুই চা-চামচ)
ইউক্য়ালিপটাস অয়েল (চার ফোঁটা)

 

পদ্ধতি (Instructions)
একটি পাত্রে মধু আর আপনার পছন্দের তেল গরম করে নিন
এবার এতে ইউক্য়ালিপটাস অয়েল মেশান
যতক্ষণ না ভালো করে মিশে যাচ্ছে, নাড়াচাড়া করুন
কৌটোয় ভরে ফেলুন, যাতে সংরক্ষণ করা যায়
সর্দি, কাশি সারাতে প্রয়োজনমতো ব্য়বহার করুন

 

প্রয়োগের নিয়ম (How to apply)
ব্য়বহারের আগে ডাক্তারের সঙ্গে কথা বলে নিন একবার
বাচ্চার বুুকে মালিশ করুন, যাতে ও সহজে শ্বাস নিতে পারে
বাচ্চার পায়ের নীচেও মালিশ করতে পারেন
ধীরে ধীরে মালিশ করুন, এতে তেলের গুণাগুণ রক্তেও মিশবে
নাকের নীচে সরাসরি লাগাবেন না

 

ইউক্য়ালিপটাস অয়েল-এর উপকারিতা (Benefits of eucalyptus oil)
জীবাণু ও সংক্রমণ প্রতিরোধক, রেহাই দেয় সর্দি-কাশি থেকে
দু’মাসের আগে বাচ্চার উপর প্রয়োগ করবেন না

ঘরোয়া ভেপার রাব : How to Make Homemade Vapour Rub in Bengali

ঠান্ডা পড়তে না পড়তেই তাপমাত্রা ও বাতাসে আর্দ্রতার হেরফেরে বেজায় নাকাল হয় বাচ্চারা। কখনও হাঁচি-কাশি, কখনও জ্বর, কখনও আবার নাক বন্ধ। শুরুতেই ডাক্তারের কাছে না নিয়ে গিয়ে ঘরেই কীভাবে আরাম দেবেন আপনার বাচ্চাকে, তারই উপায় বাতলে দিচ্ছি আমরা। বাড়িতেই বানিয়ে ফেলুন ঘরোয়া ভেপার রাব। চাইলে এটি সংরক্ষণও করতে পারেন আপনি। বাচ্চার উপর খুবই চটজলদি কাজ করে ঘরোয়া ভেপার রাব। তবে প্রয়োগের আগে ডাক্তারের সঙ্গে একবার কথা বলে নিন।

ভেপার রাব বানাতে অলিভ অয়েল কিংবা অ্য়ামন্ড অয়েল প্রয়োজন। না থাকলে নারকেল তেলেও কাজ হয়। আর দু’টি উপকরণ যা না হলেই নয়, তা হল মধু আর ইউক্য়ালিপটাস অয়েল। ঘরোয়া ভেপার রাব বানানোর পদ্ধতিও খুবই সহজ। একটি প্য়ানে প্রথমে আধ কাপ মতো অলিভ কিংবা অ্য়ামন্ড কিংবা নারকেল তেলের সঙ্গে মধু মিশিয়ে গরম করে নিন। এরপর এতে ইউক্য়ালিপটাস অয়েল মেশান। মিশ্রণটি ভালোমতো তৈরি না হওয়া অবধি নাড়াচাড়া করতে থাকুন। ঠান্ডা হলে এবার একটি কৌটোয় ঢেলে ফেলুন। ব্যস, আপনার ঘরোয়া ভেপার রাব তৈরি।

জীবাণু এবং সংক্রমণ প্রতিরোধক হিসেবে এমনিতেই ইউক্য়ালিপটাস অয়েল-এর জুরি নেই। সর্দি-কাশিতে তাই এই ভেপার রাবই হয়ে উঠতে পারে মোক্ষম ওষধি। তাই ঠান্ডা লাগার উপক্রম হলেই আপনার বাচ্চার উপর এই ঘরোয়া টোটকা প্রয়োগ করতে পারেন। ঠান্ডা লেগে যদি ওর নাক বন্ধ হয়ে যায় তবে ওর বুকে হালকা করে এই তেল মালিশ করুন। এতে ওর শ্বাস নিতে সুবিধা হবে। পায়ের তলায় হালকা করে মালিশ করুন, এতে ঘরোয়া ভেপার রাবের গুণাগুণ ওর শরীরে ঢুকবে আর আরাম পাবে ও।
তবে হ্য়াঁ আমরা বড়রা যেমন যে কোনও ভেপার রাবই সরাসরি মাথায় আর নাকের নীচে লাগিয়ে ফেলি, আপনার বাচ্চার জন্য়ে কখনওই করবেন না সেটা। আর জন্মের পর প্রথম দু’মাসের মধ্য়ে ওর উপর এমন টোটকা প্রয়োগও করবেন না। কেননা এই সময়টাতেই সবচেয়ে বেশি স্পর্শকাতর থাকে বাচ্চাটি।